জাতীয়ঃ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে এক প্রস্তুতিমূলক সভা আজ বিকেলে গণভবনে অনুষ্ঠিত হয়।দেশব্যাপী জাতির পিতার জন্ম শতবার্ষিকী উদযাপনে গঠিত জাতীয় কমিটির সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সভায় সভাপতিত্ব করেন।

সভায় দেশব্যাপী এই জাতীয় অনুষ্ঠান আয়োজনের বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় জানানো হয়, ২০২০ সালের ১৭ মার্চ রাজধানীর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দি উদ্যানে বর্ষব্যাপী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী উদযাপনের জাতীয় অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী পর্ব অনুষ্ঠিত হবে। আগামী ৮ ডিসেম্বর থেকে বঙ্গবন্ধু জন্ম শতবার্ষিকী উদযাপন অনুষ্ঠানের একশ’ দিনের কাউন্ট ডাউন শুরু হবে বলেও সভায় জানানো হয়।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাজধানীসহ সারাদেশের বিভিন্ন বিভাগ এবং জেলা-উপজেলা পর্যায়ের এই কাউন্ট ডাউনের উদ্বোধন করবেন।
সভার শুরুতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জন্ম শতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়ক ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী একটি ভিডিও প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে জন্ম শতবার্ষিকী উদযাপন অনুষ্ঠানের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন।
প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম বলেন, প্রধানমন্ত্রী প্রেজেন্টেশন উপভোগ করেন এবং এ সম্পর্কে বিভিন্ন দিক-নির্দেশনা প্রদান করেন।

সভায় দেশব্যাপী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় কমিটি এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জন্ম শতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটি’র সদস্যরা অংশগ্রহণ করেন।
এর মধ্যে সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত, জাতীয় অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলাম, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, তথ্যমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, গৃহায়ন এবং গণপূর্ত মন্ত্রী শম রেজাউল করিম, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা এইচটি ইমাম এবং ড. তৌফিক-ই-এলাহী চৌধুরী এবং বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক ববিও ছিলেন।

এছাড়া পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম, বিদ্যুৎ, জ্বলানি এবং খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু, জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন, সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদ, আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. সাঈদ খোকন, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম, নবনিযুক্ত মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক মো. আবুল কালাম আজাদ, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. সোহরাব হোসেইন, তথ্য সচিব আব্দুল মালেক, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব সাজ্জাদুল হাসান, স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব মো. হেলাল উদ্দীন, প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম, বিশিষ্ট চিত্রশিল্পী হাশেম খান, অভিনেতা হাসান ইমাম এবং শামসুজ্জামান খানও অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন।

You missed

“নরসিংদী ও মাধবদী পৌরসভা সাধারণ নির্বাচন-২০২১ উপলক্ষে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী, স্থানীয় সুধীজনসহ সংশ্লিষ্ট অংশীজনদের সাথে জেলা প্রশাসন, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও রিটার্নিং অফিসারদের মতবিনিময় সভা” আজ ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১ উক্ত মতবিনিময় সভায় উপস্থিত থেকে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন অনু্ষ্ঠানের লক্ষ্যে প্রার্থী ও সুধীজনদের মতামত শ্রবণ করেন মান্যবর জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এবং আপীল কর্তৃপক্ষ, নরসিংদী ও মাধবদী পৌরসভা সাধারণ নির্বাচন-২০২১ সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন। অবাধ, সুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানের ক্ষেত্রে প্রার্থী, সুশীল সমাজ ও সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের সহযোগিতা অপরিহার্য উল্লেখ করে মান্যবর জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মহোদয় তাঁর বক্তব্যে জনগণের ভোটাধিকার নিশ্চিতকরণে সার্বিক নিরাপত্তা বিধানের আশ্বাস প্রদান করেন এবং নির্বাচনী আচরণবিধি প্রতিপালনের জন্য সকল প্রার্থীর প্রতি আহবান জানান।