গুলেনকে ফেরত দেয়ার বিষয়টি বিবেচনা করছে আমেরিকা: তুরস্ক

  • ফতেহউল্লাহ গুলেন
    ফতেহউল্লাহ গুলেন

তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত চাভুসওগ্লু দাবি করেছেন, মার্কিন সরকার তুর্কি ভিন্ন মতাবলম্বী নেতা ফতেহউল্লাহ গুলেনকে আঙ্কারার কাছে হস্তান্তরের বিষয়টি বিবেচনা করছে এবং এ ব্যাপারে দু’দেশের নেতাদের মধ্যে সরাসরি কথা হয়েছে।

তিনি বলেন, সম্প্রতি আর্জেন্টিনায় অনুষ্ঠিত জি২০ শীর্ষ সম্মেলনের অবকাশে তুর্কি প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগান বিষয়টি নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে কথা বলেন। চাভুসওগ্লু বলেন, ট্রাম্প এরদোগানকে জানিয়েছেন তারা গুলেনসহ অন্যান্য ব্যক্তিকে হস্তান্তরের লক্ষ্যে কাজ করছেন।

তুরস্কের ধর্মীয় ও রাজনৈতিক নেতা ফতেহউল্লাহ গুলেন এক সময় প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগানের ঘনিষ্ঠ ব্যক্তি ছিলেন। কিন্তু বর্তমানে তিনি এরদোগান সরকারের কঠোর সমালোচক ও গত প্রায় দুই দশক ধরে আমেরিকায় স্বেচ্ছা নির্বাসিত জীবনযাপন করছেন।

পেনসিলভানিয়ায় গুলেনের এই বাসভবনে সম্প্রতি মার্কিন পুলিশ তল্লাশি চালায়

২০১৬ সালে তুরস্কে এক ব্যর্থ সেনা অভ্যুত্থান হলে এরদোগান সরকার ওই অভ্যুত্থানে উসকানি দেয়ার জন্য সরাসরি গুলেনকে দায়ী করে তাকে হস্তান্তরের জন্য আমেরিকার প্রতি আহ্বান জানায়।

তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সর্বশেষ বক্তব্যের আগে মার্কিন নিউজ চ্যানেল এনবিসি গত মাসে জানিয়েছিল, ট্রাম্প প্রশাসন গুলেনকে আমেরিকা থেকে বহিষ্কারের বিষয়টি বিবেচনা করছে।

সম্প্রতি মার্কিন পুলিশ পেনসিলভানিয়ায় ফতেহউল্লাহ গুলেনের বাসভবনে প্রবেশ করে। সে সময় তার মুখপাত্র জানিয়েছিলেন, গুলেনের একজন দেহরক্ষী সন্দেহভাজন এক ব্যক্তিকে লক্ষ্য করে গুলি চালানোর কারণে বিষয়টি তদন্ত করতে এসেছিল পুলিশ।